NID একাউন্ট লক হলে কি করবেন ? nid একাউন্ট লক সমস্যার সমাধান।

NID একাউন্ট লক : বর্তমান সময়ে অনেকেই জাতীয় পরিচয় পত্র এনআইডি একাউন্ট লক হওয়ার সমস্যায় পড়েছেন। কিন্তু এই একাউন্ট লক হওয়ার বিষয় নিয়ে চিন্তার কোন কারণ নেই।

কি কারনে এন আইডি কার্ড লক হয়। এবং কেন এনআইডি একাউন্ট লক হয়। সে বিষয়ে আমরা অনেকেই জানিনা। এক্ষেত্রে আপনাকে জানতে হবে, কেন এনআইডি অ্যাকাউন্ট লক হয়ে যায়।

NID একাউন্ট লক হলে কি করবেন ? nid একাউন্ট লক সমস্যার সমাধান।
NID একাউন্ট লক হলে কি করবেন ? nid একাউন্ট লক সমস্যার সমাধান।

তো এনআইডি অ্যাকাউন্ট লক হলে কি করবেন, সে বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানতে, আমাদের লেখা আর্টিকেলটি শেষ পর্যন্ত মনোযোগ দিয়ে পড়ুন।

কেন Nid Card Lock লক হয় ?

এন আইডি কার্ড লক ও এনআইডি অ্যাকাউন্ট লক দুটি আলাদা বিষয়। আপনারা ইচ্ছা করে বা ভুলবশত কোনভাবে এনআইডি কার্ড লক করতে পারবেন না।

এক্ষেত্রে কিছু নির্দিষ্ট কারণ ছাড়া কখনোই এনআইডি কার্ড লক হবে না। যদি কোন ভোটার তার নির্দিষ্ট এলাকা পরিবর্তন এর আবেদন করে, এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় ভোটার স্থানান্তর করতে চায়। সেক্ষেত্রে আবেদনের কার্যক্রম শুরু হয় মাত্রই সাময়িক ভাবে, এনআইডি কার্ড লক হয়ে যাবে।

সে সময় আপনার চাইলে এনআইডি অ্যাকাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করার সুযোগ পাবেন না। এনআইডি অ্যাকাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে গেলে, এনআইডি কার্ড লক করা হয়েছে এমন একটি মেসেজ দেখানো হবে। এ বিষয় নিয়ে চিন্তা করার কোনো কারণ নেই।

কোন ব্যক্তির ভোটার এলাকা স্থানান্তরের আবেদন অনুমোদন হয়ে গেলে, ক্যান আই ডি কার্ড লক ঠিক হয়ে যাবে। সে সময় আপনি চাইলে অনলাইনে, এনআইডি একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করে নিতে পারবেন।

তো আশা করি আপনারা জানতে পারলেন কেন nid card লক করা হয়। এখন আমি আপনাদের জানাবো কেন এনআইডি অ্যাকাউন্ট লক করা হয়।

কেন NID একাউন্ট লক হয় ?

NID একাউন্ট লক হওয়ার জন্য কিছু কারণ অবশ্যই আছে। আমরা যখন কোন ব্যক্তির এনআইডি অ্যাকাউন্ট তৈরি করার জন্য, রেজিস্ট্রেশন করতে যাই।

সেই সময় প্রথম ধাপে এনআইডি নাম্বার ও জন্ম তারিখ দিয়ে সাবমিট করলে দ্বিতীয় ধাপে, ঠিকানা যুক্ত করার জন্য ফর্ম দেওয়া হয়।

একজন ভোটারের স্থায়ী ঠিকানা এবং বর্তমান ঠিকানা সঠিকভাবে যুক্ত না করে যদি ভুল ঠিকানা যুক্ত করা হয়। কারো কোন ভাবে তিন থেকে চার বার চেষ্টা করা হয় তবে এনআইডি অ্যাকাউন্ট লক করে দেওয়া হয় না।

এছাড়া অনেকের can id account আগে তৈরি করা থাকে। পরবর্তী সময়ে লগইন করার জন্য ভুল পাসওয়ার্ড দিয়ে বারবার চেষ্টা করার ফলে, এনআইডি অ্যাকাউন্ট লক করে দেওয়া হয়।

তথ্যগত ভুল তথ্য দেওয়ার জন্য, সিস্টেম মনে করে যে, কোন না কোন ব্যক্তি কারো অ্যাকাউন্টে প্রবেশ করতে চাচ্ছে। সে অনুযায়ী স্পাম হিসেবে ধরে এনআইডি অ্যাকাউন্ট লক করে দেয় সাময়িক ভাবে।

আবার আপনি যদি ভুল ঠিকানা দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে যান। এবং ভুল পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করার চেষ্টা করেন। সেক্ষেত্র এনআইডি অ্যাকাউন্ট লক হয়ে যাবে।

NID একাউন্ট লক হলে Unlock করার জন্য করণীয় কি?

আপনাদের এনআইডি অ্যাকাউন্ট একবার লক হয়ে গেলে। তখন কোন ভাবেই নতুন করে একাউন্ট তৈরি করা সম্ভব হবে না। এক্ষেত্রে যদি এনআইডি অ্যাকাউন্ট লক হয়ে যায় তবে তার জন্য আপনার করনীয় কি? সে সম্পর্কে জানতে হবে।

আপনারা চাইলে সর্বোচ্চ তিনটি কাজ করে, এনআইডি অ্যাকাউন্ট লক হলে আনলক করার সুযোগ পাবেন।

কিন্তু তার আগে আপনাকে জেনে নিতে হবে কি কারণে আপনার এনআইডি অ্যাকাউন্ট লক করা হয়েছে। যদি কোন ভুল ঠিকানা দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করার জন্য, এনআইডি অ্যাকাউন্ট লক করা হয়।

সে ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে, আপনার স্থায়ী ঠিকানা এবং বর্তমান ঠিকানা কি দেওয়া রয়েছে সেটি জেনে নিতে হবে।

১। 105 নম্বরে ফোন করে তাদেরকে বিস্তারিত জানাতে হবে। যে ভুল ঠিকানা দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করার চেষ্টা করেছিলেন জন্য এনআইডি অ্যাকাউন্ট ব্লক করা হয়েছে।

কিন্তু বর্তমান সময়ে আমার সঠিক ঠিকানা সংশ্লিষ্ট উপজেলা অফিস থেকে জানতে পেরেছি। এ অবস্থায় আমার এনআইডি অ্যাকাউন্ট ডাউনলোড করে দেয়ার জন্য অনুরোধ করছি।

এখন এনআইডি দপ্তর থেকে আপনাকে যদি আশ্বস্ত করে, তাহলে আপনি এনআইডি অ্যাকাউন্ট আনলক করে নিতে পারবেন।

২। অন্যদিকে আপনারা চাইলে নির্বাচন কমিশনের হেড অফিসে এন আই ডি উইং এ গিয়ে, একটি আবেদন জমা দিতে পারেন। আবেদনপত্রে বিস্তারিত বিষয় উল্লেখ করতে হবে।

আপনার আবেদনের প্রেক্ষিতে, এনআইডি অ্যাকাউন্ট ব্লক করে দিতে পারবে। কিন্তু এই প্রসেসটি সকলের জন্য সম্ভব নাও হতে পারে। তার কারণ এই কাজের জন্য কেউ ঢাকা যেতে আগ্রহী হবে না।

তবে, কানাডি অ্যাকাউন্ট লক হলে, সেটি সহজভাবে আনলোড করার উপায় জানতে দেওয়ার তৃতীয় পদক্ষেপ অনুসরণ করুন।

৩। আপনি যখন দেখবেন আপনার এনআইডি অ্যাকাউন্ট লক হয়েছে। তখন আপনারা কোনভাবেই একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করার চেষ্টা করবেন না।

আপনারা সরাসরি উপজেলা নির্বাচন কমিশনের অফিস থেকে সঠিক ঠিকানা জেনে নিয়ে, কমপক্ষে ৭ দিন অপেক্ষা করবেন।

সাত দিন সময় পার হয়ে গেলে, আপনারা এনআইডি একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করার চেষ্টা করবেন। তখন দেখবেন আপনার এনআইডি অ্যাকাউন্ট লক আনলক হয়ে গেছে।

এন আই ডি অ্যাকাউন্ট লক হলে আনলক করার জন্য, আপনারা সর্বশেষ তৃতীয় পদক্ষেপটি গ্রহণ করে, সহজেই এনআইডি অ্যাকাউন্ট আনলক করে নিতে পারেন।

আপনারা উপরে দেওয়া পদ্ধতি অনুযায়ী যদি এন আইডি অ্যাকাউন্ট লক আনলক না করতে পারেন। সে ক্ষেত্রে, সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে, কর্মকর্তা কর্মচারীদের সাথে চাপাচাপি করেও কোন লাভ হবে না।

শেষ কথাঃ

তো বন্ধুরা আপনারা যারা Nid একাউন্ট লক হলে কি করবেন, সে বিষয় নিয়ে চিন্তিত তারা উপরে উল্লেখিত, সহজ পদ্ধতি গুলো অবলম্বন করে, এন আইডি অ্যাকাউন্ট আনলক করে নিতে পারবেন।

এছাড়া, আমাদের এই ওয়েবসাইট থেকে জাতীয় পরিচয় পত্র/ এনআইডি কার্ড সংক্রান্ত কোনো আপডেট জানতে চান? অবশ্যই কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।

ধন্যবাদ।

আপনার জন্য আরও আর্টিকেল

Leave a Comment