অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট 2023- বিকাশ পেমেন্ট

আপনি কি অনলাইন থেকে ইনকাম করতে চান? আপনার উত্তর যদি হ্যা হয়- তাহলে আপনি ঠিক জায়গায় এসে পড়েছেন? আজকে আমরা অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট নিয়ে আলোচনা করব। যে সাইটগুলো মূলত বাংলাদেশি এবং বাংলা ভাষাভাষী মানুষজন এই ওয়েবসাইট গুলো থেকে প্রতিদিন ইনকাম করতে পারবে। বাংলাদেশের যেকোনো মোবাইল ব্যাংকিং যেমন বিকাশ, রকেট, নগদ এবং রিচার্জের মাধ্যমে পেমেন্ট নিতে পারবে।

অনেকেই আছেন যারা অনলাইনে ইনকাম করার কথা ভেবে বিভিন্ন জায়গায় চেষ্টা করেছেন এবং অনেকেই প্রতারিত হয়েছেন। বর্তমানে অনেক ওয়েবসাইট রয়েছে যারা বিভিন্ন লোভ দেখিয়ে কাজে নিয়ে তারপর প্রতারিত করে।

যদি সত্যিকারে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে চান এবং প্রতারিত না হতে চান তাহলে এই আর্টিকেলের শেষ পর্যন্ত অবশ্যই পড়ুন।

অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট 2023- বিকাশ পেমেন্ট
অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট 2023- বিকাশ পেমেন্ট

অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট ২০২৩

অনলাইনে আয় করার বাংলাদেশী কিছু ওয়েবসাইট নিয়ে আলোচনা করার পূর্বে আমি প্রয়োজনীয় কিছু তথ্য শেয়ার করছি। আপনি যদি অনলাইনে নতুন হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই এই বিষয়গুলো আপনাকে জানতে হবে না হয় আপনি প্রতারিত হতে পারেন।

কথা হচ্ছে অনলাইনে আয় করার জন্য আপনি কোন সাইটগুলোতে কাজ করবেন এবং কিভাবে কাজ করবেন টাকা ইনভেস্ট করবেন কিনা এই বিষয়গুলো আপনাকে জানতে হবে।

অনলাইনে ইনকাম সাইট ?

অনলাইনে টাকা ইনকাম সাইট বলতে আমরা ঐ সমস্ত ওয়েবসাইটগুলোকে বলি যে ওয়েবসাইটগুলোতে প্রতিদিন কিছু না কিছু কাজ করে ইনকাম করা যায়। এই ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে কোনটি সঠিক এবং কোনটি ভুয়া এগুলা বিবেচনা করার জন্য নিচের বিষয়গুলো খেয়াল রাখতে হবে। তাহলে বুঝতে পারবেন ওয়েবসাইটে ভুয়া নাকি সঠিক।

  • আপনি যে ওয়েবসাইটে কাজ করবেন সে ওয়েবসাইটের রিভিউ দেখুন। দেখুন অন্যান্য ইউজার যারা কাজ করছে তারা কি রিভিউ দিচ্ছে।
  • দেখুন যে ওয়েবসাইটে কাজ করবেন সে ওয়েবসাইটে কতদিন থেকে মার্কেটে রয়েছে এবং সঠিকভাবে পেমেন্ট করছে কিনা।
  • খোঁজখবর নিয়ে জেনে নিন এই ওয়েবসাইট থেকে দৈনিক কি পরিমানে আয় করা সম্ভব আর কতটুকু সময় ব্যয় করতে হয়। যদি দেখেন আপনার ইনকাম এর চেয়ে অনেক বেশি পরিমানে সময় যাচ্ছে তাহলে এই সমস্ত ওয়েবসাইট থেকে দূরে থাকুন।

আরও পড়ুন: অনলাইন ইনকাম- মাসে 100,000+ টাকা আয় করার উপায় [45 টি মাধ্যম]

কিভাবে বুঝবেন সাইট ভুয়া কিনা ?

  • আপনি যে ওয়েবসাইটে কাজ করতে চাচ্ছেন দেখেন সে ওয়েবসাইট কোন অফার দিচ্ছে কিনা। যদি লোভনীয় অফার দিয়ে থাকে তাহলে ভাববেন এই ওয়েবসাইটে ভুয়া।
  • আপনাকে বিভিন্ন লাভ দেখিয়ে আপনাকে ইনভেস্ট করতে বলবে এই সমস্ত ওয়েবসাইট থেকে দূরে থাকুন।
  • কিছু কিছু ওয়েবসাইট এমন রয়েছে যারা আপনাকে কাজ দেওয়ার কথা আপনার কাছে কিছু কোর্স বিক্রি করবে। যারা বিভিন্ন লোভ দেখিয়ে কাজ দেয়ার কথা বলে কোর্স বিক্রয় করে সেগুলো থেকে দূরে থাকুন। (আপনি চাইলে নিতে পারেন তবে আমার অভিজ্ঞতায় বলছি তাদের চেয়ে অনেক ভাল টিউটরিয়াল ফ্রিতে পাওয়া যায়)
  • আপনাকে বিভিন্ন কথা বলে তাদের বিজ্ঞাপনে ক্লিক করিয়ে নেবে, ওয়েবসাইট সাবস্ক্রাইব করে নেবে, এবং ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করে নেবে, পরে আপনাকে টাকা দিবে এমন ওয়েবসাইট থেকে দূরে থাকুন। কেননা এ সমস্ত ওয়েবসাইট শুধুমাত্র তাদের লাভের জন্য এই কাজগুলো করে থাকে।
  • আপনাকে সরাসরি ইনভেস্ট করতে বলবে এবং ইনভেস্ট এর ডাবল রিটার্ন করবে এরকম ওয়েবসাইট থাকলে এগুলো থেকে আরো দূরে থাকুন।

অনলাইন আয় করতে হলে ইনভেস্ট করতে হবে কিনা?

বর্তমানে মার্কেটে অনেক ওয়েবসাইট ও মোবাইল অ্যাপ রয়েছে যেখানে তারা বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে ইনভেস্ট করিয়ে তাদের ইনভেস্টের টাকা থেকে তাদের কিছুদিন পেমেন্ট করে এবং তারপর তারা পালিয়ে যায়। এক্ষেত্রে প্রথমদিকে যারা ইনভেস্ট করে তাদের কিছু টাকা তুলতে পারলেও শেষের দিকে যারা ইনভেস্ট করবে তারা সম্পূর্ণ ধরা খাবে এবং প্রতারিত হবে।

অনলাইন থেকে ইনকাম করতে কোন রকম ইনভেস্ট করতে হয় না। আমি আবারো বলছি অনলাইন থেকে ইনকাম করতে হলে কোন রকম ইনভেস্ট করতে হয় না। এরপর যদি আপনি কোন স্থানে বেশি লাভের আশায় ইনভেস্ট করে থাকেন তাহলে সেটা সম্পূর্ণ আপনার একান্ত ব্যাপার।

আমরা কখনোই কাউকে ইনভেস্ট এর জন্য পরামর্শ দেয় না। আমরা সবসময়ই এমন সব মাধ্যম শেয়ার করি যেগুলোর মাধ্যমে কোন রকম ইনভেস্ট করা ছাড়াই নিজের দক্ষতা টাকা আয় করতে পারবেন।

এই ধারাবাহিকতায় আজকের এই আলোচনায় আমরা আলোচনা করব কয়েকটি ওয়েবসাইট নিয়ে যে ওয়েব সাইটগুলোতে কাজ করলে আপনার কোন রকম ইনভেস্ট করতে হবে না এবং প্রতিদিন আনলিমিটেড ইনকাম করতে পারবেন।

আরও পড়ুন: গ্রাফিক্স ডিজাইন করে আয় করুন মাসে 5000 ডলার। গ্রাফিক্স ডিজাইন কি? কীভাবে শুরু করবেন

বাংলাদেশী পিটিসি সাইট থেকে আয়

ইদানিং দেখা যাচ্ছে অনেকেই বাংলাদেশ পিটিসি ওয়েবসাইট বানিয়ে সেখানে বিভিন্ন ইউজারদেরকে প্রলোভন দেখিয়ে কাজ করিয়ে নিচ্ছে বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে নিচ্ছে। এবং তারা কাজের বিনিময় কিছু কিছু টাকা পেয়ে করছে। বন্ধুরা এসমস্ত পিটিসি ওয়েবসাইটে যদি কাজ করেন তাহলে কিছু টাকা ইনকাম করতে পারলেও বেশি টাকা ইনকাম করা সম্ভব নয়।

বাংলাদেশের পিটিসি ওয়েবসাইটগুলো থেকে আপনি দৈনিক সর্বোচ্চ 20 থেকে 50 টাকা আয় করতে পারবেন। কিন্তু এর জন্য আপনাকে প্রচুর সময় ব্যয় করতে হবে। আপনি যদি এই সময়টি ভাল একটি ওয়েবসাইটের পেছনে ব্যয় করেন তাহলে তিন থেকে ছয় মাস পর মোটামুটি 10 থেকে 15 হাজার টাকা মাসে ইনকাম করতে পারবেন।

মোটকথা- পিটিসি ওয়েবসাইট থেকে আয় করতে পারলেও বেশি টাকা আয় করা সম্ভব নয়। এবং পিটিসি ওয়েবসাইটে কাজ করে ভবিষ্যতে কিছু করার স্বপ্ন দেখলে আপনি ভুল করবেন। অনলাইনে ইনকাম করার জন্য পিটিসি ওয়েবসাইট কোন সমাধান নয়। আমি আবারও বলছি আপনি যদি অনলাইন থেকে ইনকাম করার কথা ভেবে থাকেন এবং এই উদ্দেশ্যে এখানে এসে থাকেন আমার পরামর্শ থাকবে পিটিসি ওয়েবসাইট থেকে অবশ্যই দূরে থাকবেন।

আরও পড়ুন: আর্টিকেল লিখে আয় করুন মাসে $1000 ডলার । আর্টিকেল লেখার নিয়ম

ভিডিও দেখে আয় করার সাইট

আবার মাঝে মাঝে দেখা যায় অনেকেই বলে ভিডিও দেখে আয় করতে চাই? ভিডিও দেখে আয় করার সাইট দিন? ভাই কিছু কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে যারা ভিডিও দেখানোর মাধ্যমে কিছু টাকা পেয়ে করে তাদের সিস্টেম হলঃ

কিছু কিছু নতুন ইউটিউবার রয়েছেন যাদের ভিডিওতে ভিউ হয়না তারা কিছু টাকা পেয়ে করে সেই ভিডিওগুলো ভিউ করার জন্য। আবার মধ্যপন্থি কিছু অ্যাপ বা ওয়েবসাইট রয়েছে যারা তাদের কাছে টাকার বিনিময়ে তাদের ভিডিও ভিউ করার কাজ নিয়ে থাকে।

তারা তাদের অ্যাপ এবং ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আমাদের মত ইউজারকে দিয়ে ভিডিও করিয়ে নেয়। বিনিময়ে ভিডিওর মালিকের কাছ থেকে যে টাকা নেয় তারা কিছু রেখে বাকি টাকা ইউজারদের পেয়ে করে।

এখন আপনি বলুন, একজন ভিডিওর মালিক কত টাকা পে করবে এবং ওয়েবসাইটের মালিক কত টাকা নিবেন, আপনাকে কত টাকা দিবেন। এমত অবস্থায় একজন ইউজার প্রতিদিন 5 থেকে 6 ঘন্টা ভিডিও দেখার বিনিময় থেকে 30 টাকা আয় করতে পারে। এখন বলুন 5 থেকে 6 ঘন্টা সময়ের জন্য যদি 20 থেকে 30 টাকা পেয়ে করা হয় এই টাকা নিয়ে মাসে কত টাকা আয় করতে পারবেন?

যেখানে প্রতিদিন ৫ থেকে ৬ ঘন্টা সময়ের জন্য আপনার কমপক্ষে 200 থেকে 400 টাকা পাওয়া উচিত ছিল।

এড দেখে আয় করার সাইট

অ্যাড দেখে টাকা আয় করা ভিডিও দেখে টাকা আয় করার মতোই একটি প্রোগ্রাম। সুতরাং আপনি যদি অ্যাড দেখে টাকা ইনকাম করার সাইট খুঁজতে থাকেন বা এসমস্ত সাইটে কাজ করার চিন্তাভাবনা করেন তাহলে এই সমস্ত কাজ করে বেশি টাকা আয় করতে পারবেন না। তবে হ্যাঁ এই সমস্ত কাজ করে কিছু কিছু টাকা আয় করতে পারবেন যা দিয়ে আপনার মোবাইল খরচ চালিয়ে নিতে পারবেন।

অনলাইনে ইনকাম বলতে আমরা সাধারণত বুঝি অনলাইন থেকে একটু স্মার্ট ইনকাম করা যায়। অর্থাৎ একজন মানুষের ন্যায্য যে পরিমাণে পাওনা উচিত।  যেটা দিয়ে একটি পরিবার চালানো সম্ভব। যদি একটি ওয়েবসাইট থেকে কমপক্ষে 5 থেকে 15 হাজার টাকা ইনকাম করতে পারেন তাহলে এটি মোটামুটি আমাদের বাংলাদেশ এর জন্য ঠিক আছে।

এদিকে আমি ভালো বলবো না এটি মোটামুটি ঠিক আছে। কেননা বর্তমানে যারা অনলাইনে কাজ করে তাদের ক্যারিয়ার করেছেন তারা মাসে কমপক্ষে 50 হাজার টাকা থেকে শুরু করে কয়েক লক্ষ টাকা পর্যন্ত ইনকাম করে থাকেন।  সে তুলনায় 5 থেকে 15 হাজার টাকা খুবই নগণ্য।

বন্ধুরা আপনি যদি অনলাইনে আয় করতে চান তাহলে কি কাজ করবেন? ভেবে পাচ্ছেননা? সমস্যা নেই আপনারা চাইলে আমাদের এই বিষয়গুলি দেখতে পারেন

তাহলে কোথায় কাজ করবেন ? 

আমি এখানে ২টি ওয়েবসাইট সম্পর্কে আলোচনা করেছি আপনারা চাইলে এই ওয়েবসাইট এ কাজ করে ইনকাম করতে পারেন। এটি খুবই ট্রাস্টেড এবং ভালো পরিমাণে পে করে থাকে।

অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট 2023 এর মধ্যে জনপ্রিয় যে ওয়েবসাইট সেটি হলোঃ

অনলাইনে আয় করার বিস্বস্থ সাইট 2023

১। জে আইটি আর্নিং প্রোগ্রামঃ

এই সাইট থেকে কিভাবে আয় করা যায়? 

এই ওয়েব সাইটে রেজিস্ট্রেশন করার সাথে সাথে কিছু টাকা বোনাস পাবেন। এরপর তিন ভাবে আয় করতে পারবেন।

আর্টিকেল লিখে আয়: প্রথমত এই ওয়েবসাইটে আপনাকে আর্টিকেল লিখতে হবে। আপনার আর্টিকেলটি প্রকাশ হওয়ার সাথে সাথে 20 টাকা থেকে 100 টাকা পর্যন্ত বোনাস পাবেন। এবং আপনার প্রকাশিত আর্টিকেলটি যতদিন ওয়েবসাইটে থাকবে এবং সে আর্টিকেলটি যত ভিউ হবে প্রতিবার জন্য আপনি 40 পয়সা করে পেতে থাকবেন অর্থাৎ প্রতি 1000 ভিউ হলে আপনি 400 টাকা পাবেন।

  • এখানে অবশ্যই 100% ইউনিক ও অরিজিনাল আর্টিকেল লিখতে হবে।
  • আর্টিকেলটি কমপক্ষে 500 ওয়ার্ড হতে হবে।
  • অবশ্যই ওয়েবসাইটে নির্ধারিত টপিক অনুযায়ী লিখতে হবে।
  • অবশ্যই নীতিমালা মেনে কাজ করতে হবে।

শেয়ার করে আয়: এই ওয়েবসাইটে আপনার লেখাগুলি যত শেয়ার করবেন তত বেশি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে যত ভিউ হবে আপনি তত আয় করতে পারবেন।

রেফার করে আয়: এই ওয়েবসাইটে রেজিস্ট্রেশন করার সাথে সাথে আপনাকে একটি রেফারেল লিঙ্ক দেয়া হবে আপনি সেই লিংকটি যত জায়গায় শেয়ার করবেন আপনার লিংকে ক্লিক করে যতজন রেজিস্ট্রেশন করবে তাদের ইনকামের 20% আপনি পাবেন আজীবন।

কিভাবে পেমেন্ট নেবেন?

এই ওয়েবসাইটটি সাধারণত 20 টাকা হলে মোবাইল রিচার্জ এর মাধ্যমে এবং 100 টাকা হলে বিকাশ, রকেট, শিওর ক্যাশ, অথবা নগদ এর মাধ্যমে করে থাকে।

এই ওয়েবসাইটে কাজ করতে হলে অবশ্যই আপনাকে এই ওয়েবসাইটের নীতিমালা গুলো মেনে সম্পন্ন ভালোভাবে পড়ে তারপর কাজ শুরু করুন আশা করি নতুন অবস্থায় ভালো আয় করতে পারবেন।

প্রয়োজনীয় ট্যাগ:  ফ্রি টাকা ইনকাম, বিকাশে আয় করার সাইট, ডলার ইনকাম সাইট, ঘরে বসে লিখে আয়, অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট ২০২৩, রিয়েল ইনকাম সাইট।

২। হতভাগা ডট কম :

হতভাগা ডটকমের একজন রেজিস্টার মেম্বার ভিভিন্ন ভাবে ইনকাম করতে পারবে। যেমন,

  1. আর্টিকেল লিখে আয়।
  2. আর্টিকেল পড়ে আয়।
  3. আর্টিকেল শেয়ার করে আয়।
  4. রেফার করে আয়।
  5. ক্যাপচা এন্ট্রি করে আয়।
  6. গুগল সার্চ করে আয়।

নিচে বিস্তারিত দেওয়া হলো:

১। আর্টিকেল লিখে আয়:

প্রথমে হতভাগা ডট কম এ রেজিস্টার করে একজন মেম্বার হতে হবে। অতঃপর লগইন করে আর্টিকেল লিখতে হবে। এবং আপনার আর্টিকেলটি এডমিন কর্তৃক রিভিউ করে প্রকাশ করা হলে প্রকাশিত আপনার একাউন্টে নির্দিষ্ট পরিমানে পয়েন্ট জমা হবে। প্রতিটি লেখার জন্য 200 থেকে 2000 পয়েন্ট পর্যন্ত দেওয়া হয়। (অর্থাৎ 20 থেকে 200 টাকা) ।

হতভাগা ডট কম এ কি কি বিষয়ে লিখতে পারবেন?

ওয়েব  হোস্টিং, ব্লগিং এন্ড ওয়েবসাইট, ইউটিউব, ডিজিটাল মার্কেটিং, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং, কম্পিউটার ও মোবাইল, সফটওয়্যার, এন্ড্রোয়েড এপ, গেমস, টেকনোলজি।

আর্টিকেল প্রকাশ হওয়ার জন্য শর্তঃ

  1. আর্টিকেল 100% ইউনিক হতে হবে। কোন ধরনের কপিরাইট আর্টিকেল প্রকাশ করা হবে না।
  2. আর্টিকেল কমপক্ষে 350 ওয়ার্ড এর হতে হবে।
  3. একটি ইউনিক ফিচার ইমেজ যুক্ত করতে হবে।

আপনার আর্টিকেল ভিউ বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া এবং অন্যান্য ওয়েবসাইটে আপনার প্রকাশিত আর্টিকেল এর লিংক প্রকাশ করতে পারবেন।

২। আর্টিকেল পড়ে আয়।

হতভাগা ডট কম এ প্রতিটি লেখার নিচে  Collect Point অপশন আছে, সেখান থেকে পয়েন্ট সংগ্রহ করতে পারবেন। আর্টিকেল পড়ে আয় করতে হলে কয়েকটি বিষয় মেনে কাজ করতে হবে। যেমন,

ক) প্রথমে লগিন করে নিতে হবে।

খ) একটি লেখা প্রতিদিন একবার পয়েন্ট পাবেন। আপনি যত ইচ্ছা আর্টিকেল পড়তে পারবেন।

গ) প্রতিটি লেখা কমপক্ষে 15 সেকেন্ড পড়তে হবে।

এভাবে যত ইচ্ছা তত পয়েন্ট অর্জন করতে পারবেন।

৩। আর্টিকেল শেয়ার করে আয়।

আর্টিকেল শেয়ার করে আয় করতে হলে- সাইট এর হোম পেজ থেকে Share Article অপশনে ক্লিক করে পৃষ্টা অপেন করতে হবে। অতপর সেখান থেকে যত লিংক আছে সেগুলি কপি করে ফেসবুক, টুইটার, মেসেঞ্জার, হোয়াটসএপ, ব্লগ কমেন্ট, প্রশ্নোত্তর সাইট, ব্লগার, ইউটিউব বা এই ধরনের সাইট এ শেয়ার করতে হবে।

আপনার শেয়ার করা লিংক এ ক্লিক করে যত ভিজিটর আমাদের সাইট এ আসবে আপনার তত পয়েন্ট আয় হবে। আপনি যত ইচ্ছা তত লিংক শেয়ার করতে পারবেন। যত ইচ্ছা তত আয় করতে পারবেন।

৪। রেফার করে আয়।

হতভাগা ডট কম এ রেজিস্ট্রেশন করার সাথে সাথে আপনার ড্যাশবোর্ডে একটি রেফারেল লিংক পেয়ে যাবেন। আপনি চাইলে সেই লিংকটি বিভিন্ন জায়গায় শেয়ার করে সেই লিংকের মাধ্যমে বন্ধু-বান্ধবদের আমাদের ওয়েবসাইটে রেজিস্টার করাতে পারবেন।

আপনার রেফারে যত ইউজার আমাদের ওয়েবসাইটের রেজিস্ট্রেশন করবে প্রতিটি ইউজারের জন্য আপনি পাবেন  30 থেকে 100 পয়েন্ট। (অর্থাৎ ০৩ থেকে 10 টাকা)

নোটঃ রেফারকৃত মেম্বার এর একাউন্ট থেকে কোন পয়েন্ট কর্তন করা হবে না। এটি সরাসরি ওয়েবসাইট কর্তৃপক্ষ প্রোভাইড করে থাকে।

৫। ক্যাপচা এন্ট্রি করে আয়।

হতভাগা ডটকমে প্রতিদিন 10 থেকে 20 টি ক্যাপচা এন্ট্রি করে পয়েন্ট অর্জন করতে পারবেন।

৬। গুগল সার্চ করে আয়।

হতভাগা ডটকমে আরো একটি আকর্ষণীয় ইনকাম করার মাধ্যম হচ্ছে গুগল সার্চ। গুগল সার্চ করে সহজে কম সময়ে বেশি পরিমাণে ইনকাম করা সম্ভব। গুগল সার্চ করে প্রতিদিন আনলিমিটেড ইনকাম করতে পারবেন।

হতভাগা ডট কম থেকে কত টাকা আয় করা যাবে

HOTOVAGA.COM থেকে আনলিমিডেট আয় করা যাবে।  এখানে আয়ের লিমিট নিয়ে কোন ধরাবাধা নিয়ম নেই । যে যত কাজ করবে ততই আয় করতে পারবে।  একজন ব্যাক্তি প্রতিদিন 2 ঘন্টা কাজ করে 100 টাকার বেশি আয় করতে পারবেন। অনেকেই আরোও বেশি আয় করে থাকেন।

hotovaga.com থেকে কিভাবে টাকা উত্তোলন করা যায়ঃ

নিচের দেয়া পেমেন্ট মেথডগুলোর মধ্যে যে কোনটির মাধ্যমে টাকা উত্তোলন করতে পারবেন।

ক) বিকাশ

খ) রকেট

গ) নগদ

ঘ) মোবাইল রিচার্জ

কত পয়েন্ট এ কত টাকা

প্রতি 1000 পয়েন্ট  = 100 টাকা

সর্বপরি আমাদের পরামর্শঃ

অনলাইনে আয় করার জন্য অবশ্যই ধর্য্য, দক্ষতা এবং বিশ্বস্ত তার প্রয়োজন। আপনাকে বাছাই করে নিতে হবে আপনি যেখানে কাজ করবেন সেটি কতোটুকু বিশ্বাসযোগ্য। এবং আপনাকে অন্তত এতটুকু দক্ষতা অর্জন করতে হবে যে আপনি কোথাও প্রতারিত হচ্ছেন সেটা বোঝার জন্য। অতঃপর বিশ্বস্ত কোন ওয়েবসাইটে কাজ করুন এবং আপনার ব্যক্তিগত দক্ষতা অর্জন করতে থাকুন।

আপনি চাইলে নিজে অনলাইনে একটি ব্যবসা শুরু করতে পারেন অথবা একটি ব্লগ শুরু করে সেখান থেকে আয় করতে পারেন। বন্ধুরা যদি এই লেখাটি আপনার কাছে ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করে তাদের জানার সুযোগ করে দিন।

আর যদি আপনার কোনো পরামর্শ বা মতামত থাকে তাহলে অবশ্যই আমাদের কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না। ধন্যবাদ

Leave a Comment